কর্মব্যস্ত নারীকে পর্দার সাথে ছুটে চলা, দানবীরদের দৃষ্টি আকর্ষণ

20201228_121932.jpg

এম এ মান্নান :
আমার মনে হয় অধিকাংশ নারীরাই পুরুষের চেয়ে বেশি ধৈর্য্যশীল ও পরিশ্রমী। তারা যে কত রকমের কাজ জানে তা লিখে শেষ করা যাবে না। তাদের দিন শুরু হয় কাজ দিয়ে এবং শেষও হয় কাজের মাধ্যমেই। একেবারে কাজ না থাকলেও সন্তান পালন, রান্না বান্না, স্বামীর খেদমত, শ্বশুর শ্বাশুরির খেদমত, স্বামীর আত্মীয় স্বজনের যত্ন নেওয়া, খাওয়া দাওয়া করানো ও সংশ্লিষ্ট সকলের মন তুষ্ট রাখা যেন নিত্য দিনের কাজ। এছাড়া নারীরা সন্তানের শিক্ষা ও চিকিৎসা বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকেন। দূর্ভাগ্যবশত: অনেক নারীকে মাঠে ঘাটে, পাড়া মহল্লায় ঘুরে ঘুরে খেটে অর্থ আয় রোজগার করে স্বামী ও পরিবারের সদস্যদের সেবা আঞ্জাম দিতে হয়। এতকিছুর পরও একজন আদর্শ নারীকে আল্লাহর নির্দেশনা মেনে চলতে হয়, ইবাদত বন্দেগী সঠিকভাবে করতে হয় এবং করেনও কিন্তু কিছু ব্যতিক্রমধর্মী নারীও আমাদের সমাজে রয়েছেন যারা ফ্রি ও অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী থাকা সত্বেও কাঙ্খিতভাবে চলেন না এবং এই সেবাটা পরিবারকে বা স্বামীকে দেন না। হয়তো তাদেরকে আমরা সেভাবে বুঝাতে পারি না। আল্লাহ তায়ালা তাদেরকে সহীহ বুঝ দান করুক। যেসব নারীরা মাঠে ময়দানে কাজ করেও আল্লাহ তায়ালার হুকুম মেনে চলেন, পর্দা করেন, নামাজ আদায় করেন, জীবন-জীবিকার তাগিদে তাদেরকে বাহিরে ছুটতে হলেও তারা যান শালীনতা বজায় রেখে, তাদের প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা চলে আসে। ছবির নারীরা আমাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছেন যে, পর্দা বা সুন্নাত কোন কাজের জন্যে প্রতিবন্ধক নয়। যারা এভাবে চলেন না তারা নানা খোঁড়া যুক্তি দেখিয়ে পর্দা ও সুন্নাতকে অবহেলা করে যাচ্ছেন যা একদিন তার ক্ষতি ও বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়াবে। নারীরা ঘরে কাজ করবেন এবং পুরুষরা বাহিরে। এভাবেই মূলত তাদের দেহাবয়ব গঠিত। ইচ্ছাকৃতভাবে কোন নারীকে বাহিরে কাজ নেওয়া উচিৎ নয়। কিন্তু নারীকে কোন কোন ক্ষেত্রে বাধ্য হয়ে ভারী কাজ করতে হয়। নারীকে ভারী কাজ করতে দেখে কষ্ট লাগে কিন্তু তারপরও তাদের করতে হয় পেটের তাগিদে। অনেক দানবীররা লাখো বা হাজারো টাকা পয়সা দান করে থাকেন। দেখা যায়, এর অনেকাংশই অপাত্রে চলে যায়। যারা প্রকৃত প্রাপক তারা এ থেকে বঞ্চিত হন। দানবীররা যদি সূক্ষ্মভাবে খতিয়ে দেখে দান করার সুযোগ পেতেন তাহলে আমার মনে হয় এসব অসহায় নারী ও ঋণগ্রস্তরা ক্ষতিগ্রস্তরা উপকৃত হতো। আল্লাহ তায়ালা সকলের দূরাবস্থা ও কষ্ট দূর করে দেওক। পরকালের পথকে করে দেওক সুগম ও সুন্দর।

Share this post

PinIt
scroll to top