ফুলপুরে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী সকাল ৮টার আগেই অবৈধ দোকানপাট স্বেচ্ছায় উচ্ছেদ

20201018_090129.jpg


এম এ মান্নান:
ময়মনসিংহের ফুলপুরে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী আজ রবিবার ১৮ অক্টোবর সকাল ৮টার মধ্যে ঢাকা-শেরপুর, ঢাকা-হালুয়াঘাট মহাসড়কের দুই পাশের অবৈধ দোকানপাট উচ্ছেদের কথা রয়েছে। ফুলপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও প্রথম শ্রেণীর ম্যাজিসট্রেট শীতেষ চন্দ্র সরকার কর্তৃক উচ্ছেদের ঘোষণা দেওয়ার পর নিজ দায়িত্বেই প্রায় ৯৫ ভাগ দোকানপাট ফজরের আগেই উচ্ছেদ হয়ে গেছে।

আর যে ৫ ভাগ দোকানপাট এখনো রয়েছে ওইগুলো লোকবলের অভাবে মালামাল সরাতে পারছেন না দোকান মালিকরা। তবে সকাল ৮টার আগেই আরো ৩ ভাগ স্বেচ্ছায় সরিয়ে ফেলার সম্ভাবনা রয়েছে। বাকি থাকবে মাত্র ২ ভাগ, যা বোল্ড ড্রেজার দিয়ে সরানো লাগতে পারে।

জানা যায়, মহাসড়কটি দুইপাশে বর্ধিত করার কাজ চলছে। এছাড়া অবৈধ এসব দোকানপাটের কারণে সম্প্রতি যানজট তীব্রতর ও মারাত্মক রূপ নিয়েছে। হাঁপিয়ে উঠছেন পথচারীরা। প্রায় প্রতিদিনই তাপমাত্রা ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসের উপরে বিরাজ করছে।

তাই অসহনীয় এ গরমে যানজট কমাতে ও রাস্তার কাজ ত্বরান্বিত করতে জরুরিভিত্তিতে অবৈধ দোকানপাট উচ্ছেদ করে রাস্তা ফাঁকা করার প্রয়োজন দেখা দিয়েছে।

এসব কারণে প্রশাসনের উচ্চ মহল থেকে ওই উচ্ছেদ অভিযানের ঘোষণা আসে প্রায় সপ্তাহখানেক আগে। পরে হঠাৎ অনিবার্য কারণে উহা স্থগিত করা হয়। ‘উচ্ছেদের আগে পুনর্বাসন চায় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা’ এ ধরনের শিরোনামে দৈনিক ময়মনসিংহে নিউজ প্রকাশ হয়েছিল। কেউ কেউ ভেবেছিল, পুনর্বাসনের পরই সরকার অবৈধদের উচ্ছেদ করবে কিন্তু এ মূহুর্তে তা হচ্ছে না।

জনজীবনকে অতিষ্ঠ করে অবৈধ দোকানপাটের লাইসেন্স দিবে না সরকার। তাই এসব অবৈধ দোকানপাট জরুরিভিত্তিতে উচ্ছেদে সরকার বদ্ধপরিকর। সরকারের এ উদ্যোগকে সুধী মহল পজিটিভ হিসেবেই ট্রিট করছেন।

তবে বরাবরের ন্যায় কদিন পরই যদি অবৈধ দোকান মালিকরা আবারো তাদের পসরা ছড়িয়ে বসেন তাহলে এসব ভাঙচুরের কোন প্রয়োজন নেই বলেও সুুধীমহল মনে করেন। উচ্ছেদের পর আর যাতে অবৈধ ব্যবসায়ীরা মহাসড়ককে বেদখল করতে না পারে সে বিষয়ে নজরদারি না বাড়ালে ভেঙেচুরে উচ্ছেদ করায় তেমন কোন ফায়দা বয়ে আনবে না।

Share this post

PinIt
scroll to top