বাবরি মসজিদ বিষয়ে রায়ের প্রতিবাদে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিক্ষোভ মিছিল

20194.jpg

এম এ মান্নান
ভারতের ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ মামলার রায় ঘোষণা করা হয়েছে। রায়ে অযোধ্যার বিতর্কিত ওই জায়গা রাম মন্দিরের জন্য বরাদ্দ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন ভারতের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রীম কোর্ট। একইসঙ্গে, মুসলমানদের জন্য নতুন মসজিদ নির্মাণে বিকল্প জমি বরাদ্দেরও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। দেশটির প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈর নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চ সর্বসম্মতির ভিত্তিতে শনিবার এই রায় দেন।
রায় ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে মুসিলম বিশ্বে এ নিয়ে নানামুখি আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে। বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এ রায়কে প্রত্যাখ্যান করে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ক্বওমী ইসলামী ঐক্য পরিষদ। এছাড়া রাজধানী ঢাকাতেও বিক্ষোভ হয়েছে।

আজ শনিবার আসরের পর বিকালে বিক্ষোভ মিছিলের পর ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সামনে ভারতের ওই রায়কে অবৈধ উল্লেখ করে বক্তারা এ রায়কে প্রত্যাখ্যান করেন। তারা বলেন, বাবরি মসজিদের স্থলে হিন্দুদের রাম মন্দির নির্মাণের অবৈধ রায় আমরা মানি না।
এদিকে, এই রায়ে কোনও পক্ষেরই জয় বা পরাজয় হয়নি বলে উল্লেখ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।
রায় ঘোষণার পর তিনি এক টুইটবার্তায় বলেন, “অযোধ্য ইস্যুত রায় দিয়েছেন মাননীয় সুপ্রিম কোর্ট। এই রায়ে কারও জয়-পরাজয় লক্ষ্য করা যায়নি। রাম ভক্তি হোক কিংবা রহিম ভক্তি, অত্যাবশ্যক বিষয় হল- আমরা রাষ্ট্রভক্তির চেতনায় আরও বেশি শক্তিশালী হয়ে উঠব। শান্তি ও সম্প্রতি বজায় থাকুক বলেও উল্লেখ করেন মোদি।
এদিকে, সম্পূর্ণ বিষয়টিকে ‘অসংবেদনশীল’ বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মোহাম্মদ কুরেশি। তিনি বলেন, বাবরি মসজিদ নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায় মোদি সরকারের ধর্মান্ধ আদর্শের প্রতিফলন।
পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মোহাম্মদ কুরেশি বলেন, ভারতে এখনো মুসলিমরা অনেক চাপের মধ্যে বাস করছেন। আর এই দেশটির সুপ্রিম কোর্টের এই সিদ্ধান্ত ভারতে বাস করা মুসলিমদের আরো চাপের মধ্যে ফেলে দেবে।
ভারত-পাকিস্তানের কর্তারপুর করিডর ঘিরে যখন আনন্দময় পরিবেশ, তখনই আলোচিত এই মামলার রায় দানের বিষয়টিকে ভালোভাবে দেখছে না ইমরান খানের সরকার। কুরেশি জানিয়েছেন, কেন এই সময়টিকেই বেছে নেওয়া হল। পুরো বিষয়টি খুবই অসংবেদনশীল। তারপরই তিনি জানিয়েছেন, সম্পূর্ণ ঘটনায় তিনি মর্মাহত।

Share this post

PinIt
mamannan537

mamannan537

I'm M A Mannan. I'm a founder principal of Excellent School & Madrasah It's new name is Darul Ihsan Qasimia (Excellent) Madrasah. It's situated at Phulpur in Mymensingh. I'm also a journalist. I write in The Daily Tathyadhara, The Dainik Bangladesher Khabor and Bangladesh Pratidin.

scroll to top