এক্সিলেন্ট স্কুল অ্যান্ড মাদরাসায় কিতাবখানার প্রথম সবক

Soboq-1.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক
ময়মনসিংহের ফুলপুর এক্সিলেন্ট স্কুল অ্যান্ড মাদরাসায় ৫জন ছাত্র নিয়ে কিতাবখানার প্রথম সবক ০৩ জুলাই বুধবার বাদ যুহর অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সময় হিফজখানা ও নাজেরা বিভাগেরও ৫জন করে ১০জন ছাত্রকে সবক দেওয়া হয়। সবক প্রদান করেন, বৃহত্তর ময়মনসিংহের প্রখ্যাত শায়খুল হাদীস জামিয়া আরাবিয়া আশরাফুল উলূম বালিয়ার শিক্ষা উপদেষ্টা মরহুম শায়খে বালিয়া আল্লামা গিয়াছ উদ্দিন পাঠান (রহ)’র উস্তাদ ফুলপুরের কৃতি সন্তান পীরে কামিল আল্লামা এমদাদুল হক সাহেব দামাত বারাকাতুহুম। সবকপূর্ব আলোচনায় কুরআন শরীফ নাযিলের প্রেক্ষাপট তুলে ধরে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, জিবরাঈল (আ.) আল্লাহ তা’য়ালার পক্ষ থেকে গারে হেরায় ওহী নিয়ে এসে নবী মুহাম্মদ (সা.)কে বললেন, পড়। নবীজী বললেন, মা আনা বিক্বারিন। অর্থাৎ আমি পড়নেওয়ালা ব্যক্তি নই। অত:পর জিবরাঈল (আ.) তাঁকে বুকে জড়িয়ে ধরে চাপ দেন। এমন তিনবার করার পর নবীজী বললেন, কিভাবে পড়ব? তখন জিবরাঈল (আ.) বিসমিল্লাহ তিলাওয়াত করে সূরা আ’লাকের প্রথম ৫ আয়াত তিলাওয়াত করেন। তিনি বলেন, বিসমিল্লাহ হলো কুরআন শরীফের শিরোনাম। আল্লাহ তা’য়ালা প্রথমে আদম (আ.)কে সৃষ্টি করার ৫শ কোটি বছর পূর্বে ৮০ হাজার আলম বা জগত সৃষ্টি করেন এবং এই বিসমিল্লাহকেই আরশে আজীমের সাইন বোর্ড হিসেবে ব্যবহার করেন। আজ এই শিরোনামেই তোমাদের সবার সবক প্রদান করছি। এরপর রাব্বি যিদনী ইলমা, দরুদ শরীফ ও বিসমিল্লাহ পড়িয়ে তিনি সবক প্রদান করেন। সবশেষে তিনিই হৃদয়গ্রাহী ও প্রাঞ্জল ভাষায় মুনাজাত পরিচালনা করেন। মুনাজাতে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনাসহ মাদরাসার মকবুলিয়াতের জন্য দোয়া করা হয়। প্রতিষ্ঠানের প্রিন্সিপাল মাওলানা আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে এ সময় ছাত্র ও অভিভাবকবৃন্দসহ আরো উপস্থিত ছিলেন, নাজিমে তা’লীমাত ফুলপুর উপজেলা হাসপাতাল মসজিদের ইমাম ও খতীব হাফেজ মাওলানা ইলিয়াস আহমাদ, মাওলানা সাঈদুর রহমান, হাফেজ মা’সূম বিল্লাহ, হাফেজ নাঈম বিন কালাম, নারকেলি গ্রামের শরাফ উদ্দিন, কাতুলি ফাযিল মাদরাসার ইবতিদায়ী প্রধান মাওলানা নূর হোসেন খান প্রমুখ।

Share this post

PinIt
mamannan537

mamannan537

I'm M A Mannan. I'm a founder principal of Excellent School & Madrasah It's new name is Darul Ihsan Qasimia (Excellent) Madrasah. It's situated at Phulpur in Mymensingh. I'm also a journalist. I write in The Daily Tathyadhara, The Dainik Bangladesher Khabor and Bangladesh Pratidin.

scroll to top