হালুয়াঘাট উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন নড়াইলের কৃতি সন্তান মাহমুদুল হক সায়েম

saem.jpg

এম এ মান্নান :
ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৪৩৯০৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন নড়াইলের কৃতি সন্তান মাহমুদুল হক সায়েম (নৌকা)। ৩১ মার্চ ২০১৯ চতুর্থ ধাপে অনুষ্ঠিত পঞ্চম উপজেলা নির্বাচনে বেসরকারিভাবে তিনি নির্বাচত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা কবিরুল ইসলাম বেগ (ঘোড়া) পেয়েছেন মাত্র ১১৪১২ ভোট। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী মীর দেলোয়ার হোসেন আনারস প্রতীক নিয়ে ১৫৮ ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ নিজামুল ইসলাম খান হাতুড়ি প্রতিক নিয়ে ৩৯৩ ভোট পেয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান পদে শাখাওয়াত হোসেন ফকির চশমা প্রতীক নিয়ে ১৪০১৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী শেখ রাসেল তালা প্রতীক নিয়ে ১৩৬০৪ ভোট পেয়েছেন। এছাড়া এস এম ফেরদৌস আলম খান উড়োজাহাজ প্রতীক নিয়ে ৭২১৭ ভোট, গোলাম মোস্তফা সারোয়ার মাইক প্রতীক নিয়ে ৫৪০৪ ভোট, মোঃ আকিকুল ইসলাম বই প্রতীক নিয়ে ৩২০৮ ভোট, মোঃ আনোয়ারুল হক মিয়া টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে ৯৯৯৫ ভোট, মোঃ মজিবুর রহমান টিয়া পাখি প্রতীক নিয়ে ১৪০০ ভোট পেয়েছেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্ধীতায় ঝর্ণা ঘোষ বিজয়ী হয়েছেন। হালুয়াঘাটে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লক্ষ ৩৩ হাজার ১৫৯। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নের জন্য তৃণমূল আওয়ামী লীগের ভোটেও হালুয়াঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের প্যানেল মেয়র নড়াইল গ্রামের কৃতি সন্তান শিক্ষানবিশ আইনজীবি মাহমুদুল হক সায়েম, এলএলবি (সম্মান), এমবিএ নির্বাচিত হয়েছিলেন। । স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা যাচাই বাছাইয়ের পর তরুণ, হাস্যোজ্জ্বল, গ্রামের খেটে খাওয়া কর্দমাক্ত ঘর্মাক্ত মেহনতি দিনমজুরসহ সকল শ্রেণী পেশার মানুষের সাথে মিলেমিশে কাজ করার মানসিকতা সম্পন্ন কর্মে তৎপর এই নেতাকে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে ওই মনোনয়ন প্রদান করেছিলেন। জনগণ তথা তৃণমূল আওয়ামী লীগের রায় অবশেষে সত্য হয়েছে। তৃণমূলের ওই ভোটে সায়েম সবচেয়ে বেশি ভোট পেয়েছেন। শুধু তাই নয়, জেলা পরিষদের নির্বাচনের সময়ও তিনি সবচেয়ে বেশি ভোট পেয়ে জেলা পরিষদের সদস্য ও পরবর্তীতে প্যানেল মেয়র নির্বাচিত হন। সায়েম ছাত্রজীবন থেকেই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট হালুয়াঘাট উপজেলা শাখার সভাপতি তরুণ এই নেতা ছাত্রজীবনে আনন্দ মোহন কলেজ ছাত্রলীগের একজন সক্রিয় সদস্য ছিলেন। নড়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সাবেক সদস্য মাহমুদুল হক সায়েম পারিবারিকভাবেই খান্দানী লোক ও রাজনৈতিক পরিবারের সদস্য। তার বাবা ধারা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সাবেক প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ জাতীয় পার্টির সাবেক জেলা আহ্বায়ক জননেতা এমদাদুল হক মুকুল ময়মনসিংহ-১ (হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া) আসনের সাবেক দুইবারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য ও একবার উপজেলা চেয়ারম্যান ছিলেন। হালুয়াঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক একমাত্র চাচা আনোয়ারুল হক মঞ্জু নড়াইল ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ছিলেন। আর দাদা মরহুম আব্দুল আজিজ তালুকদারও ছিলেন নড়াইল ইউনিয়নের আমৃত্যু চেয়ারম্যান। সায়েম কুমুরিয়া-নড়াইল হাই স্কুলের পঞ্চমবার ও হালুয়াঘাট আইডিয়াল স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির চতুর্থবারের মত সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি ময়মনসিংহ রাইফেলস ক্লাব ও রেড ক্রিসেন্টের আজীবন সদস্য। তাছাড়া চেতনা’৭১ এর সাধারণ সম্পাদক। তার সহধর্মিনী ডা. তারান্নুম মাহবুবা ময়মনসিংহ সদর উপজেলাধীন বোররচর উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের সহকারি সার্জন। সায়েম বিগত দিনে রাস্তাঘাট ও কালভার্ট নির্মাণসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মাদরাসা ও এতিমখানায় প্রচুর অনুদান প্রদান করে এলাকায় সুনাম কুঁড়িয়েছেন। অর্জন করেছেন তার প্রতি মানুষের আস্থা, সম্মান ও প্রশংসা।
গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সায়েম প্রার্থী হয়েছিলেন। পরে দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে তিনি তার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেন। এবার তৃণমূলের সমর্থন নিয়ে দল তাকে প্রাথমিকভাবে মনোনয়ন দিলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তৃণমূলের ওই রায়কে বহাল রাখেন। তিনি বর্তমান সংসদ সদস্য জুয়েল আরেং-এর অত্যন্ত আপনজন। তার বাবা প্রয়াত সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী এড. প্রমোদ মানকিন এমপিরও খুব কাছের ও স্নেহভাজন অনুসারী ছিলেন সায়েম। সায়েম বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে কাজ করে যাব। গ্রাম-গঞ্জসহ হালুয়াঘাটকে মডেল উপজেলা হিসেবে গড়ে তোলার চেষ্টা করব।
লেখক :
হালুয়াঘাট কারেসপন্ডেন্ট অব দি ডেইলি এশিয়ান এইজ
ফুলপুর প্রতিনিধি, দৈনিক তথ্যধারা ও বাংলাদেশ প্রতিদিন
প্রিন্সিপাল, এক্সিলেন্ট স্কুল এন্ড মাদরাসা, কলেজ রোড, ফুলপুর, ময়মনসিংহ।

Share this post

PinIt
mamannan537

mamannan537

I'm M A Mannan. I'm a founder principal of Excellent School & Madrasah It's new name is Darul Ihsan Qasimia (Excellent) Madrasah. It's situated at Phulpur in Mymensingh. I'm also a journalist. I write in The Daily Tathyadhara, The Dainik Bangladesher Khabor and Bangladesh Pratidin.

scroll to top