ভেঙে পড়বেন না নাজনীন আলম, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনার জন্য ব্যবস্থা নিবেন, ইনশা-আল্লাহ

Naznin-Gouripur.jpg

এম এ মান্নান
নাজনীন আলম, আপনার বক্তব্য “আমার ফাঁসী চাই..!!

১) কেন হাই কমান্ডের আশ্বাসকে সরল মনে বিশ্বাস করেছিলাম!

২) এলাকাবাসী ও দলীয় নেতাকর্মীদের পাশে থাকার প্রয়োজন কেন অনুভব করেছিলাম!

৩) এমপি/সিনিয়র কোন নেতার পরিবারের সদস্য কেন আমি হলাম না!

৫) কেন দলের নাম ভাঙ্গিয়ে একটি পয়সা রোজগারের ধান্ধা করিনি!

৬) কেন দলের জন্য কাজ করতে গিয়ে দিনে দিনে নি:স্ব হতে গেলাম!

৭) কেন জনসমর্থন অর্জনের চেষ্টা করেছিলাম!

৮) কেন তদ্বীর/তেলবাজি ঠিকমত করতে পারলাম না!

৯) কেন সমর্থকদের বার বার কাঁদাচ্ছি!!

—সম্ভবত: এ সবই আমার ভুল/অপরাধ.. !এজন্য আমার শাস্তি হওয়া উচিত।।”
পড়ে চোখের পানি ধরে রাখতে পারলাম না। এত কষ্ট আপনি কি করে সহ্য করবেন? এতদিন তো আপনি নিজে নিজের কষ্টকে চেপে রেখে দিন গুজরান করেছেন। এখন ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আপনার কষ্টটা আপনার হাজারো ভক্তবৃন্দের মাঝে ছড়িয়ে দিয়েছেন, তারা ভাগাভাগি করে নিয়েও যেন সহ্য করতে পারছেন না। ব্যথায় অনেকের চোখ বেয়ে গড়িয়ে পড়ছে তপ্ত জল। নাজনীন আলম, আপনি অত্যন্ত উঁচু মাপের একজন বক্তা। আপনি এত সংক্ষেপে এত তাৎপর্যপূর্ণ এত জ্বালাময়ী বক্তব্য দিয়েছেন, যার ফলে আপনার হাজারো ভক্তবৃন্দের হৃদয় ফেটে যাচ্ছে, মন ভেঙে চক্ষু দিয়ে রক্ত প্রবাহিত হচ্ছে, বুক জ্বলে পুড়ে যাচ্ছে। এই বক্তব্যের লাইনে লাইনে এত কথা লুকানো যার ব্যাখ্যা লিখতে গেলে হাজার হাজার পৃষ্ঠায়ও কুলাবে না। তবে নাজনীন আলম আপনি নিশ্চয়ই জানেন যে, আমাদের কোন নিজস্ব রোগী নিয়ে হাসপাতালে গেলে আর রোগীটি ছটফট করতে থাকলে, চিল্লা-পাল্লা করতে থাকলে আমরা যতটা ব্যথা পাই, কেঁদে দেই, অপেক্ষা সয় না, ডাক্তার বা নার্সদের মধ্যে কিন্তু তেমন অনুভূতি লক্ষ্য করা যায় না। কারণ এ ধরনের সিচুয়েশন আমাদের নজরে এই প্রথম হলেও তাদের নজরে কিন্তু প্রতিদিন প্রতিমূহুর্তে ভুরি ভুরি। এসব তারা কত দেখবেন, কত কাঁদবেন? ফলে তারা এতটা প্রভাবিত হন না। আমাদের মত তাদের চোখে জল আসে না। এমনকি ভান করেও তারা কাঁদতে পারেন না । তারপরও মহৎ দুই/চারজন ডাক্তার যে নেই এমন নয়। যারা রোগীদের ব্যথা বুঝেন, ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেলের মত স্বেচ্ছায় এগিয়ে আসেন। তারা না থাকলে আমরা চলতে পারতাম না, দেশ চলতো না। আমার মনে হয়, ওই দুই/চারজন ব্যতিক্রম ডাক্তারের মধ্যে আমাদের প্রধানমন্ত্রীও একজন। তিনি মানুষের মন বুঝেন, বুঝে শুনে চিকিৎসা দিতে পারেন। হয়তো একটু সময় লাগতে পারে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এত নিষ্ঠুর নয়। তার বিশাল একটা মন আছে। সে মন কত বড়, কত বিশাল কত প্রশস্ত তা মাপ-পরিমাপের যন্ত্র আমাদের মত সাধারণের নিকট নেই। সাংবাদিকরা লেখনির মাধ্যমে আপনার হৃদয়গ্রাহী বক্তব্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট তুলে ধরেছেন। আমার মনে হয়, নিশ্চয়ই এ খবর মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কানে পৌঁছবে। তখন দেখবেন এর একটা বিহিত ব্যবস্থা হয়ে যাবে। নো টেনশন।

Share this post

PinIt
mamannan537

mamannan537

I'm M A Mannan. I'm a founder principal of Excellent School & Madrasah It's new name is Darul Ihsan Qasimia (Excellent) Madrasah. It's situated at Phulpur in Mymensingh. I'm also a journalist. I write in The Daily Tathyadhara, The Dainik Bangladesher Khabor and Bangladesh Pratidin.

scroll to top