ফুলপুরের সাবেক কৃষি অফিসার মফিদুল ইসলাম তালুকদারের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে উপ-সচিব পদ লাভ

Mufidul-Jono.jpg

এম এ মান্নান
ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার সাবেক কৃষি অফিসার মফিদুল ইসলাম তালুকদার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব পদে পদোন্নতি লাভ করেছেন। এর আগে তিনি ঢাকা জেলা কৃষি অফিসের সহকারি পরিচালক (এডি) ছিলেন। তিনি ভালুকা উপজেলার পুরুয়া গ্রামের প্রাইমারী স্কুল টীচার মজিবুর রহমান তালুকদারের ছেলে।
সম্প্রতি জনপ্রশাসনের জ্যেষ্ঠ সহকারি সচিব ও সমমর্যাদার ২৫৬ জন কর্মকর্তাকে উপ-সচিব হিসেবে পদোন্নতি দেয় সরকার। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় কর্তৃক গত বুধবার মধ্যরাতে এ আদেশ জারি করার পর তার এলাকায় সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে সাধারণ মানুষের মাঝে ব্যাপক খুশি ও আনন্দ বিরাজ করতে থাকে। চা-স্টল ও দোকান-পাটে চলতে থাকে শুধু মফিদুলের প্রশংসা আর গুণকীর্তন। ব্যক্তি জীবনে তিনি খুবই সাদাসিধে, আদর্শবান ও নিবেদিতপ্রাণ একজন অফিসার। ছাত্র জীবন থেকেই তিনি ছিলেন অত্যন্ত মেধাবী। ফুলপুরে থাকাকালীন তিনি একদমে উপজেলার শত শত গ্রামের ও কৃষকের নাম মুখস্থ বলতে পারতেন। তিনি ইংলিশ স্পীকিংয়েও খুব পারদর্শী ছিলেন।
তিনি নিজ উপজেলার পুরুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ৫ম শ্রেণীতে মেধাবৃত্তিসহ প্রাথমিক শিক্ষা সম্পন্ন করেন। তারপর ধলিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে স্কলারশীপসহ ৮ম এবং স্টার মার্কসহ এসএসসি পাস করেন। পরে স্টার মার্কসহ ঢাকার সরকারি তিতুমীর কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। ভর্তি পরীক্ষায় সেখানে তিনি মেধা তালিকায় প্রথম স্থান অর্জন করেন। শুধু তাই নয়, ২০তম বিসিএসে ২৩২ জন কৃষি অফিসারের মধ্যে মেধা তালিকায় তিনি প্রথম স্থান অর্জন করেছিলেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলা কৃষি অফিসার হিসেবে কৃতি এ অফিসারের প্রথম কর্মজীবন শুরু হয়। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব পদে পদোন্নতি পাওয়ায় মফিদুল ইসলাম তালুকদারকে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ সুশীল সমাজের লোকেরা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানানো অব্যাহত রেখেছেন। তার এ সফলতা মহান আল্লাহ পাকের দান উল্লেখ করে তিনি নিষ্ঠার সাথে সরকারের অর্পিত দায়িত্ব পালনের জন্য সকলের দোয়া কামনা করেন।

Share this post

PinIt
mamannan537

mamannan537

I'm M A Mannan. I'm a founder principal of Excellent School & Madrasah It's new name is Darul Ihsan Qasimia (Excellent) Madrasah. It's situated at Phulpur in Mymensingh. I'm also a journalist. I write in The Daily Tathyadhara, The Dainik Bangladesher Khabor and Bangladesh Pratidin.

scroll to top