প্রথম তারাবীহতে তিলাওয়াতকৃত আয়াতসমূহের সংক্ষিপ্ত আলোচনা

M-A-Mannan-1.jpg

এম এ মান্নান
প্রতি বছরের ন্যায় এবারও রহমত, বরকত ও মাগফিরাতের বার্তা নিয়ে এসেছে পবিত্র মাহে রমজান। রমজানকে উপলক্ষ করে বরাবরই পৃথিবীজুড়ে বেড়ে যায় কুরআন তিলাওয়াতের মাত্রা। ছেলে মেয়ে বুড়োবুড়ি, মা ঝি তিলাওয়াতে সক্ষম পরিবারের এমন প্রতিটি সদস্যই কমছে কম একটি খতম হলেও দিতে চান এই রমজানকে ঘিরে। এ নিয়ে চলে মোটামুটি প্রতিযোগিতা। আর এমন ইবাদাতজনিত বিষয় নিয়ে প্রতিযোগিতা করার জন্য আল্লাহও ‘ফাসতাবিক্বুল খাইরাত’ বলে উৎসাহিত করেছেন। ১৭ মে দিবাগত রাতে গেল পবিত্র মাহে রমজানের প্রথম তারাবীহ্। আসুন, আমরা সবাই খতমের নিয়্যাতে কুরআন নিয়ে বসি। হাফেজ সাহেবরা তো ইতোমধ্যেই কুরআন নিয়ে বসে পড়েছেন। গত দিনেই প্রায় মসজিদে মসজিদে হাফেজ সাহেবরা শুরু করে দিয়েছেন খতমে তারাবীহের তিলাওয়াত। রমজানের ২৭ রজনীতে খতমে কুরআনের নিয়তে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের জারি করা নিয়ম অনুযায়ী প্রথম ৬দিন তারাবীহতে দেড়পারা করে তিলাওয়াত করতে হয়। সে অনুযায়ী গতরাত বাদ ইশা সূরা ফাতিহা ও কুরআন শরীফের সবচেয়ে বড় সূরা বাকারার শুরু থেকে দেড় পারা অর্থাৎ সূরা বাকারারই ২০৩ নং আয়াত পর্যন্ত তিলাওয়াত করা হয়েছে। সূরা বাকারা সম্বন্ধে হাদীস শরীফে এসেছে, যে ব্যক্তি সূরা বাকারা তিলাওয়াত করে তার উপর কোন যাদুকরের যাদু প্রভাব বিস্তার করতে পারে না। নবী করীম (সাঃ) এ সূরাকে সিনামুল কুরআন ও যারওয়াতুল কুরআন বলে উল্লেখ করেছেন। সিনাম ও যারওয়াহ্ বস্তুর সবচেয়ে উৎকৃষ্টতম অংশকে বলা হয়। এ সূরাটিতে এক হাজার আদেশ, এক হাজার নিষেধ, এক হাজার হেকমত ও এক হাজার সংবাদ এবং কাহিনী বর্ণনা করা হয়েছে।
কুরআন সত্য কিতাব এতে কোন সন্দেহ নেই তা প্রথমেই দৃঢ়তার সাথে বলা হয়েছে। ইহা মুত্তাকীনদের জন্য পথপ্রদর্শকস্বরূপ। এতে কাফের ও মুনাফিকদের আলামত বর্ণনা করা হয়েছে। সূরাটিতে বেঈমানদেরকে ভয়ানক শাস্তির খবর দেয়া হয়েছে। যারা আল্লাহ থেকে সকল সুবিধা নিয়ে তারই সাথে কুফুরী করে তাদের প্রতি তিনি আশ্চর্যবোধক বাক্য উচ্চারণ করে বলেন, কাইফা তাকফুরুনা বিল্লাহ ? অর্থাৎ যে আল্লাহ তোমাদের সব কিছু দিয়েছেন সেই আল্লাহর সাথে তোমরা কেমন করে কুফুরী কর? অন্য জায়গায় বলা হয়েছে, আমল হল নাজাত ও বেহেশত পাওয়ার উপায়। কারো সাথে কোন বিষয়ে অঙ্গীকার করলে তা পালন করা ওয়াজিব; উহা লঙ্ঘন করা হারাম। যারা ধরাকে সরা জ্ঞান করে তাদের হুঁশিয়ার করা হয়েছে। বলা হয়েছে- তুমি কি জান না আকাশ এবং পৃথিবীর আধিপত্য একমাত্র আল্লাহরই ? এ সূরাতে আল্লাহ পাকের শক্তির বর্ণনা দিয়ে বলা হয়েছে, তিনি যদি কোন জিনিসকে বলেন হও, তখনই তা হয়ে যায়। ২০৩ নং আয়াতে বলা হয়েছে- তোমরা আল্লাহর যিকির কর, তাকওয়া অবলম্বন কর, আল্লাহকে ভয় কর। জেনে রেখো, তোমাদের সবাইকে তারই নিকট গিয়ে সমবেত হতে হবে।

Share this post

PinIt
mamannan537

mamannan537

I'm M A Mannan. I'm a founder principal of Excellent School & Madrasah It's new name is Darul Ihsan Qasimia (Excellent) Madrasah. It's situated at Phulpur in Mymensingh. I'm also a journalist. I write in The Daily Tathyadhara, The Dainik Bangladesher Khabor and Bangladesh Pratidin.

scroll to top