দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ১০ম কারামুক্তি দিবস আজ

.jpg

সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স
আজ ১১ সেপ্টেম্বর দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ১০ম কারামুক্তি দিবস। ৩৬ বছরের রাজনৈতিক জীবনে প্রথম দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ২০০৭ সালের ২ সেপ্টেম্বর ফখরুদ্দীন-মইন উদ্দিনের জরুরি অবস্থার অবৈধ তত্ত্বাবধায়ক সরকার কর্তৃক গ্রেফতার হয়ে ১ বছর ৯ দিন কারারুদ্ধ থেকে ২০০৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বর কারামুক্ত হন। এর আগে অবশ্য স্বৈরাচার এরশাদ তার দিরুদ্ধে পরিচালিত আপোষহীন সংগ্রাম করার জন্য বেগম জিয়াকে ঘোষিত-অঘোষিতভাবে গৃহবন্দী করে। তাঁর বিচক্ষণতা, আপোষহীন মনোভাব, সঠিক সিদ্ধান্তের কারণে একদিকে অবৈধ শাসক গোষ্ঠি যেমন তাদের নীল নক্সা পরিপুর্ন বাস্তবায়ন করতে পারে নাই, অন্যদিকে দেশ ও গণতন্ত্র এবং বিএনপি চুড়ান্ত ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। এজন্য অবশ্য তাঁকে অনেক ত্যাগ স্বীকার করতে হয়েছে। বড় ছেলে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে তার চোখের সামনে থেকে ধরে নিয়ে পংগু ও হত্যা করার ষড়যন্ত্র হয়েছে। ছোটছেলে আরাফাত রহমান কোকোকে অসুস্থ্য অবস্থায়ও তার হাত থেকে কেড়ে নিয়ে যাওয়ার মতো বেদনাদায়ক ঘটনা ও পরবর্তীতে বিদেশে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ার মর্মান্তিক ঘটনাও তাঁকে অবলোকন করতে হয়েছে। এতো জুলুম নির্যাতন সত্বেও বেগম খালেদা জিয়াকে তাঁর পথ থেকে কেউ সরাতে পারেনি।
বেগম খালেদা জিয়া, বাংলাদেশের রাজনীতিতে উজ্জ্বল ধ্রুবতারা। নিভৃতে গৃহবধু থেকে রাজনীতির উত্তাল সাগর পাড়ি দিয়ে আজকের বেগম খালেদা জিয়া একজন পোড়খাওয়া পরিপক্ক রাজনীতিবিদ। শহীদ জিয়া যেমন মাইলের পর মাইল পায়ে হেঁটে মানুষের দুঃখ দূর্দশা শুনে দেখে বুঝে তাঁর নীতি, কর্মসূচি, কর্মকৌশল, রাজনীতি নির্ধারণ করেছিলেন, বেগম খালেদা জিয়াও একই কাজ করেছিলেন।তিনিতো তাঁর প্রয়াত স্বামীকে খুব কাছ থেকেই দেখেছিলেন, তাই স্বামীর পদাঙ্ক অনুসরণ করে নিজেকে দেশ, জনগণ, গণতন্ত্রের কল্যাণে নিয়োজিত করেছেন। মানুষের সমর্থন, ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে হয়েছেন দেশনেত্রী, পরিণত হয়েছেন সর্ব শ্রেনী-পেশার মানুষের আশা ভরসার স্থলে, আপোষহীন সংগ্রামের প্রতীকে।
দেশ, জনগণ, গণতন্ত্রের প্রতি বেগম খালেদা জিয়ার যে কমিটমেন্ট, তা থেকে তিনি এতটুকু বিচ্যুত হননি। প্রতিটি পদক্ষেপে তিনি এই কমিটমেন্টের কথা খেয়াল রেখেছেন, সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, রয়েছেন অবিচল। আজ তাঁর ১০ম কারামুক্তি দিবসে তাঁকে জানাই স্বশ্রদ্ধ সালাম, শুভেচ্ছা, অভিনন্দন। প্রার্থনা করি দীর্ঘ, সুস্থ এবং সাফল্যময় জীবন।
— লেখক: সাংগঠনিক সম্পাদক, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)
Weltkrieges ging chadwick gemeinsam mit rutherford an die gute einleitung bachelorarbeit beispiel universität cambridge, wo beide wissenschaftler bis zum weggang von chadwick 1935 eine fruchtbare zusammenarbeit verband

Share this post

PinIt
mamannan537

mamannan537

I'm M A Mannan. I'm a founder principal of Excellent School & Madrasah It's new name is Darul Ihsan Qasimia (Excellent) Madrasah. It's situated at Phulpur in Mymensingh. I'm also a journalist. I write in The Daily Tathyadhara, The Dainik Bangladesher Khabor and Bangladesh Pratidin.

scroll to top