মেক্সিকোর একটি গ্রামে মানুষ – পশু প্রায় সবাই দৃষ্টিহীন

20Tr.jpg

এম এ মান্নান
মেক্সিকোতে এমন একটি গ্রাম রয়েছে, যে গ্রামের মানুষ-পশু সকলেই দৃষ্টিহীন!…..

শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি যে, টিলটেপেক গ্রামের প্রতিটি মানুষ দৃষ্টিহীন। শুধু তাই নয়, দৃষ্টিহীন গ্রামের পোষ্যরাও।

অদ্ভুত এ গ্রামের অবস্থান মেক্সিকোর ঘন অরণ্যের মধ্যে। ওখানে বাস করেন প্রায় তিনশ মানুষ। যারা জাতিতে জাপোটেক।

এখন আপনার প্রশ্ন জাগতেই পারে এতো মানুষ কিভাবে অন্ধ হলেন? সাথে পোষা প্রাণীগুলোও? আর এ গ্রামের নামই বা এমন অদ্ভুদ ধরণের কেন?

আপাতত: এসব প্রশ্নের সমাধানের জন্য অনুসন্ধান চালাচ্ছে বিজ্ঞানীরা। তবে, এখনো সুষ্ঠু সমাধানে পৌঁছানো সম্ভব হয়নি।

ধারণা করা হচ্ছে ওই ঘন অরণ্যে ‘ব্ল্যাক ফ্লাই’ নামে বিষাক্ত মাছি রয়েছে। যা টিলটেপেক গ্রামেও প্রচুর সংখ্যায় দেখা যায়।

এই বিষাক্ত মাছির কামড়ে জীবাণু সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। যার কারণেই শিশু থেকে বুড়ো এবং পশুরাও ধীরে ধীরে দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলে।

তবে গ্রামবাসীর দাবি- এখানে রয়েছে লাবজুয়েরা নামের এক ধরনের গাছ। যা অভিশপ্ত। আর এ গাছই তাদের দৃষ্টিশক্তি কেড়ে নিয়েছে।

তারা আরও বলেন যে, এ গ্রামে যেসব বাচ্চা জন্মায় শুরুতে অন্যসব নবজাতকের মতোই সুস্থ-সবল হয় তারা। কিন্তু সপ্তাহখানেক যেতে না যেতেই দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলে শিশুরা।

এদিকে, মেক্সিকো সরকার গ্রামের বাসিন্দাদের অন্যত্র সরিয়ে নেয়ার চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়েছেন বলেও জানা যায়।

এমতাবস্থায় কেন ওই গ্রামের মানুষ দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলছে তা নিয়ে বিজ্ঞানীদের পাশাপাশি কাজ করছে স্থানীয় প্রশাসন। লাবজুয়েলা গাছের যে গল্প গ্রামজুড়ে ছড়িয়ে আছে তা নিয়েও তদন্ত করছেন তারা।

সংগ্রহীত।

Top