মাওলানা আব্দুল করিম ছিলেন একজন সমাজ সংস্কারক ও ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব

20855.jpg

এম এ মান্নান :
মাওলানা আব্দুল করিম ছিলেন একজন সমাজ সংস্কারক ও ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব। তাঁর মৃত্যুতে জাতির অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। বুধবার বাদ যুহর মাওলানার জানাজাপূর্ব সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন। মাওলানা আব্দুল করিম (৯৫) মঙ্গলবার রাত ১১টা ১০মিনিটের সময় বার্ধক্যজনিত কারণে উপজেলার পয়ারী ইউনিয়নের কাড়াহা গ্রামে নিজ বাড়িতে ইন্তিকাল করেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিঊন। তাঁর মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। তিনি স্ত্রী, ৫ ছেলে, ৪ মেয়ে ও নাতিনাতনিসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। বুধবার নিজ বাড়ির আঙ্গিনায় তাঁর নামাজে জানাজাশেষে তাঁকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। তাঁর জানাজায় স্থানীয় বরেণ্য ব্যক্তিবর্গসহ হাজারো মানুষের ঢল নামে। তিনি মুক্তাগাছা আলিয়া ও কাতলাসেন আলিয়া মাদরাসায় পড়াশোনা করেছেন। ফাযিল পাস করার পর তিনি কাতুলি এমদাদিয়া ফাযিল মাদরাসায় শিক্ষকতা করেছেন। এছাড়া বাহাদুরপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ও মুন্সীরহাট প্রাথমিক বিদ্যালয়েও তিনি শিক্ষকতা করেন। এর আগে আমুয়াকান্দা বাজারে তিনি ধান ও কীটনাশকের ব্যবসা করতেন। তিনি কাড়াহা জামে মসজিদের ইমাম ছিলেন। শুধু তাই না, তিনি কাড়াহা মসজিদের দাতা সদস্য ও কাতুলি মাদরাসা এবং ফুলপুর সরকারি ডিগ্রি কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য ছিলেন। মাওলানা আব্দুল করিম স্থানীয় পর্যায়ে একজন প্রবীণ মুরুব্বি ছিলেন। তাঁর জানাজাপূর্ব সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউল করিম রাসেল, মেয়র আমিনুল হক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আলহাজ্ব এম এ হাকিম সরকার, প্রবীণ আলিম মাওলানা আব্দুল কাদির, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এড. আবুল বাসার আকন্দ, প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা জহিরুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শাহ কুতুব চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, পয়ারী ইউপি চেয়ারম্যান মফিজুল ইসলাম, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব একেএম তোফাজ্জল হক, বিএনপি নেতা আলহাজ্ব সিদ্দিকুর রহমান, রকিবুল হাসান সোহেল, তারাকান্দা যুবলীগের সাবেক সভাপতি ও বালিখা ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শামছুল আলম রাজু, ফুলপুর প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি নুরুল আমিন, মরহুমের ছেলে মুক্তিযুদ্ধের গবেষক, দৈনিক খোলা কাগজ ও দৈনিক সবুজের ফুলপুর প্রতিনিধি এটিএম রবিউল করিম রবি, উপজেলা শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক এটিএম রফিকুল করিম নোমান প্রমুখ। নামাজে জানাজায় ইমামতি করেন, মরহুমের নাতিন জামাই মুফতি আল আমিন। আর জানাজাপূর্ব সমাবেশ সঞ্চালনায় ছিলেন, মরহুমের নাতি রিফাতুল করিম। বক্তব্যে মরহুমের রূহের মাগফিরাত কামনাসহ তাঁর শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করে বক্তারা বলেন, মরহুম মাওলানা আব্দুল করিম শুধু একজন ধর্মীয় ব্যক্তিত্বই ছিলেন না বরং তিনি স্থানীয় আওয়ামী লীগের একজন নিবেদিতপ্রাণ কর্মীও ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে জেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা আওয়ামী লীগ, ফুলপুর প্রেসক্লাব ও ফুলপুর সাংবাদিক সমিতিসহ বিভিন্ন রাজিৈনতক, সামাজিক সংগঠন শোক প্রকাশ করেন।

Top