ফুলপুরে ফিশারীর পাড়ে গরু উঠায় শ্রমিক খুন

shafiq-1.jpg

এম এ মান্নান :
ময়মনসিংহের ফুলপুরে ফিশারীর পাড়ে গরু উঠাকে কেন্দ্র করে শফিকুল ইসলাম (৪০) নামে এক শ্রমিককে দিনদুপুরে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে খুন করা হয়েছে। উপজেলার রহিমগঞ্জ ইউনিয়নের পারতলা গ্রামে মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, নিহত শফিকুলের বড়ভাই রফিক উদ্দিনের গরু পাশের বাড়ির আব্দুল কাদিরের ফিশারীর পাড়ে উঠলে ওরা গরুকে মারধর করে। এর প্রতিবাদ করলে প্রতিপক্ষ আব্দুল কাদির গং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এক পর্যায়ে আব্দুল কাদির, মামুন, কাসেম, মিজান, আল আমিন, এহসানুল, সুমন, পারুল ও হাশিমরা কুচ, সুলফি, লাঠি ও দেশীয় অস্ত্রসহ শফিকুলদের উপর আক্রমণ চালায়। এতে ঘটনাস্থলেই শফিকুলের মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ও নিহত শফিকুলের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
সরেজমিনে পরিদর্শন করতে গেলে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্য চোখে পড়ে। শফিকুলের স্ত্রী, মা-বোন ও ছেলেমেয়েরা কান্নায় বার বার মুচড়ে যাচ্ছিলেন। তাদের কান্নার কারণে চোখের পানি ধরে রাখতে পারছিলেন না উপস্থিত আশপাশের লোকজন।
জানা যায়, শফিকুল ঢাকায় এক রড কোম্পানীতে কাজ করতো। পরিবারের সদস্যদের সাথে ঈদ করতে ছুটি নিয়ে সে আজ মঙ্গলবার সকালে বাড়িতে আসে। তার বাবা হাফিজ উদ্দিন বলেন, আমার ছেরাডা বাড়িত আয়া হারতারছে না। এর কিছুক্ষণ পরই নির্মমভাবে তাকে খুন করা হয়। নিহত শফিকুলের স্কুল পড়–য়া মেয়ে তামান্না বলেন, গরু ছিল আমরার পুকুরের পাড়ে অথচ তারা কয় তাদের পুকুরের পাড়ে। এসব বলে জেডিরে ওরা খারাপ খারাপ ভাষায় গালি গালাজ করে। পরে আব্বা আগায়া গেলে আব্বারে কুচ, সুলফি ও লাঠি দিয়ে আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই আমার বাবা মারা যায়। ওরা আমার জেডারেও মারছে। আমার ভাইয়ের কাপড়-চোপড় খুইল্যা নিয়া গেছে। আমি এদের ফাঁসি চাই।
ফুলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি মেহেদী হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৪জনকে আটক করা হয়েছে। আর নিহত শফিকুলের লাশ ময়না তদন্তের জন্য মমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

Top