ফুলপুরে খাদিজা হত্যার বিচার দাবিতে মিছিল ও স্মারকলিপি পেশ

Phulpur-Khadiza-pic.jpg

এম এ মান্নান :
ময়মনসিংহের ফুলপুরে খাদিজা হত্যার বিচার দাবিতে এলাকাবাসি ও পরিবারের পক্ষ থেকে প্রতিবাদ মিছিল ও উপজেলা প্রশাসনের নিকট স্মারকলিপি পেশ করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গেট থেকে ওই মিছিল শুরু হয়। মিছিলটি ঢাকা-হালুয়াঘাট মহাসড়ক হয়ে থানায় গেলে সেখান থেকে তাদেরকে উপজেলায় যেতে বলা হয়। পরে তারা উপজেলায় যায় এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি স্মারকলিপি পেশ করে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেবুন নাহার শাম্মী তাদের সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দিয়ে বলেন, স্মারকলিপিটি আমি জেলায় পাঠাব। উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউল করিম রাসেল বলেন, খাদিজা হত্যার বিচারের জন্য যা যা করা দরকার তাই করা হবে। এরপর মিছিলটি ভাষা সৈনিক এম শামছুল হক চত্বরে গিয়ে এক প্রতিবাদ সভায় মিলিত হয়। সেখানে বক্তব্য রাখেন, খাদিজার ভাই সোহেল মিয়া। তিনি বলেন, আমার বোনকে হত্যা করা হয়েছে। এর সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হিসেবে ফাঁসি দাবি করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, খাদিজার মা শামছুন্নাহার, বড়বোন হামিদা আক্তার, বোন জামাই বদরুল খান, এলাকার লিপি আক্তার, সাবিনা খাতুন, বন্যা আক্তার, রিয়াদ হাসান, মোরশেদ আলী প্রমুখ।
উল্লেখ্য, উপজেলার বাতিকুড়া গ্রামে ৩০ মে খাদিজাকে তার স্বামী খলিলুর রহমান ও তার লোকজন যৌতুকের দাবিতে নির্মমভাবে মারধর করে। পরে ওই দিন শেষরাতে ফুলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তখন স্বামী খলিলুর রহমান ওখান থেকে পলায়ন করে। খবর পেয়ে সাথে থাকা শ্বাশুড়ি আনোয়ারা খাতুনকে আটক করে পুলিশ। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফুলপুর ওসি মেহেদী হাসান (ভারপ্রাপ্ত) বলেন, এ ঘটনায় ৭জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। ওই মামলায় খলিলের মা’সহ সহোদর ভাই আব্দুল করিম ও আব্দুস সাত্তারকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয় এবং ৫দিনের রিমান্ডের দাবি করলে আদালত ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

Top