মেম্বররে ১৫শ টেহা দিতারছিনা দেইখ্যা সরহারি ঘর ফাইছি না — ভিক্ষুক মইরোমেন্নেছা

Moirom-Tarakabda.jpg

এম এ মান্নান
ভিক্ষুক মইরোমেন্নেছা (১০০) একটা সরকারি ঘর চায়। তার বাড়ি ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার কাকনি ইউনিয়নের তেহুরকান্দি গ্রামে। স্বাধীনতার পর পরই তার স্বামী আলেফ জব্বর মারা যায়। এরপর থেকেই তার কপালে লড়াদশা। ‘নূন আনতে পানতা ফুরায়’ অবস্থা। পাড়ায় পাড়ায় ভিক্ষা করে এখন তার দিন চলে। একটা ছেলে ও ৪টা মেয়ে রেখে গেলেও ওরা আরো দরিদ্র। মইরোমেন্নেছা জানায়, তাদেরই দিন চলে না। তার বয়স জিজ্ঞাসা করলে অনুমান করে বলে, ১০০ বছর। ফুলপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় চানু ভাইয়ের চা স্টলে বসা ছিলাম আমরা ক‘জন। আমাদের কাছে ভিক্ষা চাইলে তার কাছে জানতে চেয়েছিলাম, আপনি সরকারি কোন সুবিধা পেয়েছেন কি? তখন ‘না’ সূচক উত্তর দেয় মইরোমেন্নেছা। এরপর সে বলে কত মাইনষে সরহারি ঘর দোর পাইতাছে। আমরা কিছুই ফাই না। পরে তারাকান্দা ইউএনও নাসরিন সুলতানার সাথে দেখা করার জন্য তাকে পরামর্শ দেওয়া হয়। এ সময় মইরোমেন্নেছা বলে, এক মেম্বরের কাছে গেছলাম। ১৫শ টেহা চায়। পরে তারে ১৫শ টেহা দিতারছিনা দেইখ্যা সরহারি ঘর ফাইছি না। পরে ওখানে প্রাইভেট কারের ৪জন ড্রাইভারসহ উপস্থিত লোকজন তাকে সরাসরি ইউএনও’র সাথে দেখা করার পরামর্শ দেন।

Top